সোলায়মান হায়দার

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে নারীদের ফুল টাইম চাকরি করা অত্যন্ত কঠিন একটা কাজ। বাংলাদেশের বেশীরভাগ স্বামীরা সংসারের কাজ করতে অভ্যস্ত নয়। ফলে, কোন নারী চাকরি করলেও, তাকে সংসারের সকল কাজ করতে হয়। এই কারনেই, বাংলাদেশের নারীরা চাকরি করে না বা তাকে করতে দেয়া হয় না। কিন্তু তারা ইচ্ছে করলেই অনায়াসেই কিছু সময় ফ্রিল্যান্সিং করে ভালো আয় করতে পারে।

আমার মতে ফ্রিল্যান্সিং নারীদের জন্য অত্যন্ত পারফেক্ট একটি পেশা হতে পারে। আজ আমি নারীদের ফ্রিল্যান্সিং পেশার কিছু সুবিধা নিয়ে আলোচনা করবো।

১. অফিস টাইম নেইঃ

ফ্রিল্যান্সিং এ কোন অফিস টাইম মেইন্টেইন করতে হয় না। ফলে নারীরা ইচ্ছামতো সময় বের করে কাজ শেষ করে ফেলতে পারবে। এমনকি কাজ করতে করতে ফ্যামিলিকেও সময় দিতে পারবে তারা। তবে হ্যা, এজন্য ভেবেচিন্তে কাজ নিতে হবে।

২. কাজ বেছে নেয়ার সুযোগঃ

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে প্রচুর কাজ রয়েছে, সেগুলি থেকে ফ্রিল্যান্সাররা ইচ্ছামতো কাজ বাছাই করে নিতে পারে। তাই নারীরা তাদের সুবিধামতো কাজ বাছাই করে নিতে পারবে।

৩. শখ কে পেশা হিসেবে নেয়াঃ

কারো কারো অনেক শখ থাকে, যেমন আর্ট, রাইটিং, ইত্যাদি। ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে নারীরা এই শখের কাজগুলি করেও ভালো একটা ইনকাম করতে পারবে।

৪. নিজের খরচ নিজেই বহন করাঃ

নিজের খরচ নিজেই বহন করার মতো মজার আর কিছুই নেই। ফ্রিল্যান্সিং করে একজন নারী স্বাবলম্বী হতে পারবে খুব সহজেই। ফলে হাত খরচের জন্য কারো কাছে হাত পাততে হবে না। এমনকি, সংসারে প্রচুর সাহায্যও করতে পারবে।

৫. কাজ করার স্বাধীনতাঃ

ফ্রিল্যান্সিং এ নিজের ইচ্ছামতো সময় এবং কাজের ধরন পছন্দ করে নেয়া যায়। ফলে নারীরা তার সুবিধামত সময়, কাজ, অন্যান্য বিষয়গুলি নির্ধারণ করে নিতে পারবে।

৬. পরিবারের সাথে সময়ঃ

ফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল, আপনি বাড়িতে বসেই কাজ করবেন, ফলে সন্তানসহ পরিবারের সকলের সাথে অনেক সময় ব্যয় করতে পারবেন। আর নারীরা সেটাই সবসময় করে থাকে। তাই নারীরা ফ্রিল্যান্সিং করে সংসার এবং পেশা দুটোতেই সমানতালে চালিয়ে যেতে পারবে।

বাংলাদেশের নারীদের স্বাবলম্বী হওয়া অনেক বেশী দরকার। নারীরা যদি অর্থনীতিতে পুরুষদের সাথে তাল মিলিয়ে অবদান রাখতে পারে তবেই আমাদের দেশের অর্থনীতি উন্নতি করবে। আর সেটা ফ্রিল্যান্সিং করে নারীরা অনায়াসেই করতে পারবে। এজন্য দরকার সঠিক গাইড লাইন এবং উন্নত প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা।

পোস্টের মন্তব্যগুলি

কমেন্ট লোড হচ্ছে...

এই ধরনের আরও পোস্ট

ফ্রিল্যান্সিং এর টুকরো গল্প [২] – সোজা আঙ্গুল ও বাঁকা আঙ্গুল

৩ বছর আগে পোস্ট করা হয়েছে

ফ্রিল্যান্সিং এর টুকরো গল্প [২] – সোজা আঙ্গুল ও বাঁকা আঙ্গুল

বেশ কয়েকবছর আগের কথা, একটা কাস্টম ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপমেন্ট এর প্রোজেক্ট পাই ৭০০ ডলারের। এজ ইউজুয়াল ৫০০ ডলার আপফ্রন্ট নেই আর বাকিটুকু প্রজেক্ট ডেলিভারির সময় নিবো। তাছাড়া ক্লায়েন্ট এর ব্যবহার অনেক ভালো, এমন ক্লায়েন্টকে মাগনা কাজ করে দিতেও ভালো লাগে। (ক্লায়েন্ট ব্রাজিলিয়ান সুন্দরী ছিলো) হাসিখেলা করে সাপ্তাহখানেক লাগলো প্রজেক্ট কমপ্লিট করতে। আমার একটা বাজে স্বভাব…

ফ্রিল্যান্সিং এর প্রচারণা এবং ছাত্রদের ফ্রিল্যান্সিং

৫ বছর আগে পোস্ট করা হয়েছে

ফ্রিল্যান্সিং এর প্রচারণা এবং ছাত্রদের ফ্রিল্যান্সিং

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং কে নিয়ে ওভার পাবলিসিটি হচ্ছে। এই প্রচারণা কেউ করছে নিজে পাবলিসিটি পাওয়ার জন্য আর কেও করছে নিজে কিছু কামিয়ে নেওয়ার জন্য। আর প্রতিদিনই অসংখ্য ছেলে-মেয়েরা সবকিছু ফেলে এই সেক্টরে ঢুকছে আর অসংখ্য ছেলে-মেয়েরা হতসায় নিমজ্জিত হচ্ছে। এখানে আবেগের বশে এসে কোন লাভ নেই। আর আসলাম, বসলাম, টাকা গুনলাম এই ভ্রান্তিটাও বেশীরভাগ নতুনদেরই রয়েছে।…

আমার সাথে একজন ইন্ডিয়ান ডেভেলপার এর একটি ইন্টারভিউ

৭ বছর আগে পোস্ট করা হয়েছে

আমার সাথে একজন ইন্ডিয়ান ডেভেলপার এর একটি ইন্টারভিউ

একজন ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপার লাগবে ছোট একটা কাজের জন্য। আমি অন্য প্রজেক্টে ব্যস্ত আছি জন্য ক্লায়েন্টে হায়ার করতে বললাম। ইন্টারভিউতে আমাকে বসিয়ে দিল। আমার প্রশ্নঃ মিয়া তোমার বাড়ি কই? ডেভেলপারঃ ইন্ডিয়া। আমিঃ দারুন। ডেভেলপারঃ থ্যাঙ্ক ইউ। আমিঃ তোমারেও থ্যাঙ্ক ইউ। গুড বাই… 😀 ডেভেলপারঃ সরি? আমিঃ আসলে আমাদের বেশ কয়েকটি সুন্দর অভিজ্ঞতা আছে ইন্ডিয়ান ওয়ার্কারদের নিয়ে।…

ফ্রিল্যান্সিং আর আউটসোর্সিং এর মধ্যে পার্থক্য

২ বছর আগে পোস্ট করা হয়েছে

ফ্রিল্যান্সিং আর আউটসোর্সিং এর মধ্যে পার্থক্য

ফ্রিল্যান্সিং কে পেশা হিসেবে বলার একটা ট্র্যাডিশন অনলাইন কমিউনিটিতে প্রচার হয়েই আছে, তার মধ্যে কিছু পন্ডিত ভাই-ব্রাদার আবার আদর করে এটাকে আউটসোর্সিং বলেও প্রচার করে থাকে। কিছু টেক জার্নালিস্ট, ইভেন কিছু সরকারের উচ্চ-পদস্থ কর্মকর্তারাও এই সেক্টরটাকে আউটসোর্সিং বলে প্রচার করে। ফ্রিল্যান্সিং ওয়ার্ডটাকে কে মোটামুটি মেনে নেয়া যায়, কিন্তু আউটসোর্সিং শব্দটা যে সম্পুর্ন উল্টো, এটা কেউ…

সেভেন শেডস অব ব্যাড ক্লায়েন্টস

৫ বছর আগে পোস্ট করা হয়েছে

সেভেন শেডস অব ব্যাড ক্লায়েন্টস

একজন ফ্রিল্যান্সারের দুঃস্বপ্ন কি? আ ব্যাড ক্লায়েন্ট। আমাদের জীবনে কয়েকজন জিনিস আসে, যাদের কে আমরা ব্যাড ক্লায়েন্ট বলি। তারা একেকজন আবার একেক কিসিমের হয়। তাদেরকে নিয়ে আজ কিছু কথা বলবো। ১। মিস্টার নেভার এন্ডঃ এই ক্লায়েন্টগুলির চাহিদা শেষ হয় না। এরা ছোটো একটা প্রজেক্টের জন্য নামমাত্র মুল্যে ফ্রিল্যান্সার হায়ার করে এবং যখন আপনি কাজ শুরু…

দুর্বল ইন্টারনেট কানেকশন

আপনার ইন্টারনেটের ধীরগতির জন্য পেজটি লোড হতে কিছুক্ষণ বেশী সময় লাগছে।